মানুষ চেনা...


.

কিছু কিছু মানুষ আছে সমাজে আর পৃথিবীজুড়ে - পুরুষ এবং নারী উভয়। তদেরকে দেখলে মনে হবে এদের মত নিরীহ আর কেউ হতে পারে না। বাহির থেকে এদেরকে দেখলে মনে হবে, এরা পাপহীন একজন মানুষ। এদের কথা, বক্তব্য ও লেখা পড়লে মনে হবে এদের মত সত্যবাদি আর হতে পারেনা। এরা ভাল মানুষের মধ্যে উদাহরণ।

আসলে এদের কাছে গেলে আপনি বুঝতে পারবেন এরা কতটা নিষ্ঠুর, মিথ্যাবাদী, প্রতারক, পাপী ও চরিত্রহীন। কিন্তু এরা নিজেদেরকে দাবী করে রক্ষণশীল, দয়াশীল এবং অনেক অভিজ্ঞ। কিন্তু এদের সাথে মেলামেশা করলেই আপনি বুঝতে পারবেন এরা কতটা রক্ষনশীলের নামে ভন্ড, চরিত্রহীন ও অনভিজ্ঞ। এরা বাস্তবতার ধারেকাছেও নেই, এরা খুবই অহংকারী । এদের গরীব গৃহ-কর্মচারীরা পর্যন্ত এদের হাতে প্রতিনিয়ত নির্যাতিত। এদের ঘরে দু' ধরণের রান্না হয়। এক. নিজেদের জন্য চিকন চাউলের উন্নত খাবার। আর কাজের লোকের জন্য মোটা চাউলের নিম্ন মানের খাবার।
 
উপটৌকন হিসাবে আসা ঝুড়িঝুড়ি ফল থেকে একটি ফলও কাজের লোকদের খেতে না দিয়ে ঝুড়িঝুড়ি ফল পচিয়ে, আবার সেই কাজের লোকদের মাধ্যমেই তা ময়লা হিসেবে ফেলে দেয় এরা। আর তা দেখে কাজের লোকগুলো দীর্ঘশ্বাস ফেলে। এরা হিংসুটে, লোভি, এরা তাদের কাছের মানুষকেও ব্ল্যাকমেইল করতে একটুও দ্বিধা করে না। এরা প্রিয়জনের রক্তক্ষরণ করিয়ে সুখ লাভ করে। এরা গরিবকে সাহায্য দেওয়ার উপদেশ দেয়, কিন্তু নিজের হতদরিদ্র কাজের লোককে মেরে রক্তাক্ত করতে একটুও সময় নেয় না। এরা ঘরের মানুষের দুর্বলতার সুযোগ খুজে বেড়ায় কিন্তু এরা সহকর্মীদের সাথেও অবৈধ, অনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনে একটু বিচলিত হয় না, এসব ব্যাপারে এরা অধিক মাত্রায় সাহসী। এরা ঘরের মানুষকে পর্যন্ত এমন মানসিক নির্যাতন চালায়, ফলে ঘরের মানুষ আত্বহত্যার চেষ্টা করেও এদের হাত থেকে বাঁচতে চায়। এরা নিজে মারাত্মক অন্যায় করে তা আবার গুছিয়ে বিশ্বাসযোগ্য উপায়ে অপরের উপর ছাপিয়ে দিতে খুবই দক্ষ। এদের থেকে সবাইকে সতর্ক থাকা উচিৎ।

কিন্তু এদেরকে আপনি চিনবেন কিভাবে? বুঝবেন কিভাবে? সেটা বড়ই শক্ত কাজ। এদেরকে চিনতে হলে এদের সাথে দিনে রাতে কম করে ৭২ ঘন্টা এক সাথে, এক কক্ষে থাকতে হবে, চলতে হবে। এদের সাথে লেনদেন করতে হবে, মিশতে হবে অনুসন্ধানী দৃষ্টি নিয়ে গভীরভাবে। এদের একক বা একতরফা কথা না শুনে, বিশ্বাস না করে দুপক্ষের কথা শুনতে হবে, পারিপার্শ্বিক অবস্থা বিবেচনা করেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে এরা কতটা সত্যবাদী বা সত্যবাদিনী। অথবা নিজের জীবনের অনেক কিছু হারিয়ে সেই অভিজ্ঞতা দিয়েই ওদেরকে চিনতে হবে। তখন সে অভিজ্ঞতা ওই লোকের ক্ষেত্রে নিজের কোন কাজে আসলো না। নিজের যা হারানোর তা হারিয়ে গেল। এভাবে তাদেরকে চেনা যেতে পারে।

এরা এতটা নিষ্ঠুর যা প্রমান করলে, করতে পারলে আপনি এদেরকে নিষ্ঠুরভাবে শাস্তি দিতে বাধ্য হবেন। এরা নিজ সন্তানদের পর্যন্ত জিম্মি করে, গোপন করে ইত্যাদি উপায়ে বা নিজের ঘরে আগুন দিয়ে অপরকে দোষী প্রমান করতে মরিয়া হয়ে উঠে।

এদেরকে আমার কখনো কখনো মনে হয় সাইকো, আবার কখনো মনে হয় হিস্টিরিয়া আক্রান্ত রুগি। বা এরা নিরীহ চেহারাযুক্ত 'মানুষখেকো'। এরা মানুষের জীবন তছনছ করে মজা নেয়, এরা মানুষ রূপী পিশাচ। এদের কথা, ভাবভঙ্গী, লেখা, ও উপদেশমূলক বাণী শুনে মানুষ, আমরা ভুল করে থাকি। এটা আমার অভিজ্ঞতালব্ধ অধ্যায় থেকেই তুলে ধরা।

Your Reply

আমার সম্পর্কে আরও জানতে চাইলে,
ক্লিক করুন WadudBhuiyan.Com